1. ph.jayed@gmail.com : akothadesk42 :
  2. admin@amaderkatha24.com : kamader42 :
সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:১৬ অপরাহ্ন

ইতালি যাওয়ার পথে বিয়ানীবাজারের নুরুল নিখোঁজ

আমাদের কথা ডেস্ক
  • আপডেট : বুধবার, ২৯ জানুয়ারী, ২০২০

নিউজ ডেস্ক: ইউরোপ যাত্রার স্বপ্নে লিবিয়া হতে ইতালি যাওয়ার পথে ভূমধ্যসাগর উপকূলে পৌঁছার ২১ দিন পরও সিলেটের বিয়ানীবাজারের নুরুল হক (৩০) নামে এক যুবক নিখোঁজ রয়েছেন। এতে দুশ্চিন্তা ও উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছেন পরিবার-পরিজনরা। নিখোঁজ নুরুল হকের ছোট ভাই আয়নুল হোসেন এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন। নিখোঁজ যুবক উপজেলার চারখাই ইউনিয়নের বারইগ্রাম এলাকার মৃত রহমত আলীর পুত্র।

নিখোঁজের ছোটভাই আয়নুল হোসেন জানান, নুরুল হক দেশে কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। বাবাহীন পরিবারে মাসহ তিন ভাইয়ের সংসারের হাল ধরতে ইউরোপে যাবার স্বপ্নে বিভোর ছিলেন তিনি। পরবর্তীতে বিয়ানীবাজার চারখাইয়ের সাচান ও মাদারীপুরের দুই আদম পাচারকারীর মাধ্যমে ৪ লাখ ৮০ হাজার টাকা চুক্তিতে বছর খানেক আগে লিবিয়া যান নুরুল। দীর্ঘদিন লিবিয়াতে অবস্থান করার পর গত ৯ জানুয়ারি রাত ৮টায় সমুদ্রপথে ইতালি যাবার জন্য ট্রলারে চড়েন তিনি। ট্রলারে চড়ার পূর্বে নুরল বাড়িতে সর্বশেষ যোগাযোগ করেছে বলে জানান আয়নুল হোসেন।

তিনি আরো জানান, নুরুলের সাথে ওইদিন দুই ট্রলারযোগে আরো ৫০-৬০ জন যাত্রী সাগরপথে ইতালির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। তবে ইতালিগামী ট্রলার দুটি ইতালি সীমান্তে পৌঁছালেও টানা ২১ দিন ধরে নুরুল হকের কোনো খোঁজ মিলছে না। এতে পরিবার-পরিজনদের মধ্যে দুশ্চিন্তা ও শঙ্কা কাজ করছে। কেননা ট্রলারে চড়ার পর থেকে এখনো তিনি বাড়িতে যোগাযোগ করেননি। ভাইয়ের খোঁজ নেওয়ার জন্য সম্প্রতি মাদারীপুরের আদম পাচারকারীর সাথে যোগাযোগ করেও ব্যর্থ হন তার পরিবারের সদস্যরা।

তবে বিয়ানীবাজার চারখাইয়ের অপর আদম ব্যবসায়ী নিখোঁজের পরিবারের সদস্যদের জানান, নুরুল হকসহ ৫০-৬০ জন যাত্রী বহনকারী দুটি ট্রলার ইতালি সীমান্তে পৌঁছেছে। তবে নুরুলসহ আরো বেশ কয়েকজনের কোনো খবর পাচ্ছি না। দুয়েকদিন অপেক্ষা করুন। খবর পাওয়ার সাথে আপনাদের জানানো হবে।

আয়নুল হোসেন জানান, মাস দুয়েক আগে বড়ভাই ফয়জুল হকের মৃত্যু এবং আর এখন আরেক ভাই নুরুল হকের নিখোঁজের সংবাদে মাসহ আমাদের পরিবার-পরিজনরা দুশ্চিন্তা ও উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছেন। এ সময় তিনি নুরুল হকের খোঁজ পেতে ইতালির সমুদ্র তীরবর্তী এলাকায় বসবাসরত সকল বাংলাদেশি এবং ইতালিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

এ বিষয়ে চারখাই ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ আলী বলেন, এ ধরণের একটি সংবাদ পেয়েছি। তবে আমি প্রায়ই আমার ইউনিয়নের অনেক যুবক নিখোঁজের সংবাদ পাই। আবার ইউরোপগামী অনেক যুবকের মরদেহ আনতে কাগজপত্র স্বাক্ষর করে দেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই জাতীয় আরো খবর
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Maintained By Ka Kha IT