1. ph.jayed@gmail.com : akothadesk42 :
  2. admin@amaderkatha24.com : kamader42 :
বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ০৮:১৩ অপরাহ্ন

সৈকত খুলে দিতেই বেড়ে গেল লোকসমাগম

আমাদের কথা ডেস্ক
  • আপডেট : সোমবার, ২০ এপ্রিল, ২০২০

নিউজ ডেস্ক: মানুষ সাঁতার কাটছে। সাইকেল চালাচ্ছে। সার্ফিং করছে। হাঁটছে কিংবা দৌড়াচ্ছে। বর্শিতে মাছ ধরছে। কারও মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বালাই নেই। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার রাজ্যের জ্যাকসনভিল সৈকতের এই চিত্র করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর আগের নয়। বরং তরতাজা!

কোভিড-১৯ রোগের সঙ্গে পৃথিবীব্যাপী লড়াইয়ের মাঝপথে গত ১৭ এপ্রিল বিকালে জ্যাকসনভিল সৈকত পুনরায় খুলে দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় পুলিশ বেড়া নামানোর পরপরই মানুষ ব্যাপক উৎসাহ নিয়ে আনন্দে মেতে ওঠে। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় এই বেলাভূমিতে সর্বসাধারণের প্রবেশাধিকার কিছুদিন স্থগিত ছিল।

আমেরিকার সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে জ্যাকসনভিলের বাসিন্দারা জানান, সৈকতে না যেতে পারা ছিল তাদের কাছে যন্ত্রণার। এটি আবারও খুলে দেওয়ায় স্থানীয়রা আবেগাপ্লুত। তাদের মধ্যে ইলিয়ট টোনি সিএনএন অনুমোদিত ডব্লিউজেএক্সটি টিভি স্টেশনকে বলেন, ‘সাইকেল চালানো বা সার্ফিংয়ের পরিকল্পনা করছি আমি।’

জ্যাকসনভিল ওয়েবসাইটে জানা যায়, চিত্তবিনোদনের জন্য সমুদ্রতীরে পায়চারি ও দৌড়ানো, বেড়ানো, সাইকেল চালানো এবং সাঁতারের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সূর্যস্নান কিংবা দলবেঁধে থাকা যাবে না সৈকতে। এছাড়া তোয়ালে, কম্বল, চেয়ার, খাবার-পানির কন্টেনার আনা নিষেধ।

অথচ শুক্রবার দেখা গেলো বিপরীত দৃশ্য। অনেকে তোয়ালে ও খাবার-পানির কন্টেনার নিয়ে সূর্যস্নানে বেরিয়ে পড়ে। তাদের মধ্যে খুব কমসংখ্যক মানুষ মাস্ক পরেছেন। এ প্রসঙ্গে জ্যাকসনভিলের মেয়র লেনি কারির মন্তব্য, ‘স্বাভাবিক জীবন ফিরে পাওয়ার শুরুটা হতে পারে এখান থেকে। অনুগ্রহপূর্বক আমাদের নির্দেশাবলী মেনে চলুন। নিজে সুস্থ থাকার পাশাপাশি প্রতিবেশীদের নিরাপদ রাখতে প্রয়োজনীয় নিয়ম অনুসরণ করুন।’

আটলান্টিক বিচের মেয়র এলেন গ্ল্যাসার শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সৈকত সামাজিক দূরত্বের নিয়ম ও সৈকতের বিধিনিষেধ মেনে না চললে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তার কথায়, ‘এখন অলস সময় কাটানোর সুযোগ নেই। এখন পার্টির সময় নয়। ব্যায়াম ও হাঁটাহাঁটি প্রয়োজন সবার। এরপরই ঘরে ফিরে যেতে হবে।’

আশঙ্কা করা হচ্ছে, লোকারণ্যের কারণে জীবাণুটি আরও ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ে বিপদ ডেকে আনতে পারে। তাই সৈকত পুনরায় খুলে দেওয়াকে ভালো চোখে দেখছেন না অনেকে। লিসা মানচিনি নামের এক নারীর মতে, ‘বাতাসে জীবাণু ছড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই আমার মনে হচ্ছে এই পদক্ষেপ ঝুঁকিপূর্ণ।’

ফ্লোরিডার জ্যাকসনভিল সৈকতে পর্যটকরাপ্রতিদিন ভোর ৬টা থেকে সকাল ১১টা ও বিকাল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে জ্যাকসনভিল সৈকত। শহরের পার্কগুলো আবারও খোলা হয়েছে। তবে কোথাও অর্ধশত লোকের বেশি জমায়েত না করার আদেশ বহাল থাকছে।

গত মাসে সৈকতে চলাচল বন্ধ না করায় সমালোচিত হয়েছিলেন ফ্লোরিডার গভর্নর রন ডিসান্টিস। এ কারণে ৩ এপ্রিল থেকে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া সবাইকে ঘরে থাকার আদেশ দেন তিনি। ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত এটি কার্যকর থাকার কথা ছিল। তবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সৈকত, পার্কসহ জনসাধারণের অন্যান্য স্থান উন্মুক্ত করার ধারণাতে একমত পোষণ করেছেন তিনি।

গভর্নরের মন্তব্য, ‘লক্ষ্য করলে দেখবেন, বেশিরভাগ মানুষ সাধারণত ইনডোরে অন্যের সংস্পর্শে আসার কারণে জীবাণুতে সংক্রমিত হয়েছে। তাই থেমে না থেকে এগিয়ে যেতে হবে। মানুষকে ভালো ও নিরাপদ পন্থায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার অনুশীলনে উদ্বুদ্ধ করতে চাই আমরা।’

নিউজটি শেয়ার করুন

এই জাতীয় আরো খবর
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Maintained By Ka Kha IT