1. ph.jayed@gmail.com : akothadesk42 :
  2. admin@amaderkatha24.com : kamader42 :
সোমবার, ০২ অক্টোবর ২০২৩, ০৯:৫৮ অপরাহ্ন

‘মুনিয়াকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে’

আমাদের কথা ডেস্ক
  • আপডেট : বুধবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২১

‘মুনিয়াকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে’ অভিযোগ করে প্রধানমন্ত্রীর কাছে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তার বড়ভাই

রাজধানী ঢাকার গুলশানের একটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হওয়া নিহত কলেজছাত্রী মুশরাত জাহান মুনিয়াকে বাবা-মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) বাদ আসর কুমিল্লা নগরীর টমসমব্রিজ কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়। এরআগে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে ওই কলেজছাত্রীর মরদেহ কুমিল্লা নগরীর বাগিচাগাঁও এলাকায় তার বড় বোনের বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় উৎসুক মানুষ বাসাটির আশপাশে ভিড় জমায়।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) সন্ধ্যার পর গুলশান ২ নম্বরের ১২০ নম্বর সড়কের ফ্ল্যাটটি থেকে তার মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় এলাকার বিভিন্ন মহলে শোকের ছায়া নেমে আসে। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মারফত দেশব্যাপী ভাইরাল হয়ে পড়ে। পুলিশ কর্তৃক ওই কলেজছাত্রীর মরদেহ উদ্ধারের পর তার বড় বোন নুসরাত জাহান বাদী হয়ে রাজধানীর গুলশান থানায় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরকে একমাত্র আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।

জানা যায়, নগরীর মনোহরপুরের উজির দীঘির দক্ষিণপাড় এলাকার বাসিন্দা মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি সফিকুর রহমানের মেয়ে মোসারাত জাহান মুনিয়া রাজধানীর মিরপুর ক্যান্ট. পাবলিক স্কুল এ- কলেজের শিক্ষার্থী। এবার এ প্রতিষ্ঠান থেকে তার এইচএসসি পরীক্ষা দেয়ার কথা ছিল। এর আগে সে কুমিল্লা নগরীর বাদুরতলা এলাকার ওয়াইডব্লিউসিএ নামক একটি স্কুল থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করে। পরে সে নগরীর নজরুল এভিনিউ এলাকার মডার্ন হাইস্কুলে ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হয়ে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করে এবং সর্বশেষ রাজধানীর মিরপুর মনিপুরী স্কুল এ- কলেজ থেকে এসএসসি পাশ করে। পরিবারে এক ভাই ও দুই বোনের মধ্যে সে সবার কনিষ্ঠ। এর আগে সোমবার দিবাগত গভীর রাতে রাজধানীর গুলশান ২ নম্বরের ১২০ নম্বর সড়কের একটি ফ্ল্যাট থেকে ওই কলেজ ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মঙ্গলবার বিকালে ঢাকা থেকে কুমিল্লায় ফিরে নগরীর বাগিচাগাঁও এলাকায় অরণী নামক ভবনের ফ্ল্যাটে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “দুই বছর আগে থেকে বসুন্ধরার ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরের সাথে মুনিয়ার সম্পর্ক হয়। গত কিছুদিন ধরে মুনিয়ার মন খারাপ ছিল। এরপর আনভীরকে বিয়ের কথা বলেছিল। এনিয়ে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য হয়েছে। কালকে মুনিয়া ফোন করে বলে- আমাকে মেরে ফেলবে। আমাকে ধোকা দিয়েছে, ধোকা দিয়েছে। আপু তুমি তাড়াতাড়ি ঢাকায় আসো, আমার অনেক বড় বিপদ। আমার যে কোন সময় একটা দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। বিষয়টি জেনে ঢাকায় রওনা দেই এবং যেতে যেতে তাকে অনেক ফোন দেয়া হয়, কিন্তু সে আর ফোন ধরেনি। পরে বাসায় গিয়ে দরজা নক করলেও সে খুলেনি। এসময় বাসার মালিককে ডেকে ঘরের তালা ভেঙ্গে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাই। আনভীর ওই বাসায় আসা-যাওয়া করেছে সিসিটিভির এমন ফুটেজ পুলিশ পেয়েছে।”

নিউজটি শেয়ার করুন

এই জাতীয় আরো খবর
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Maintained By Macrosys