1. ph.jayed@gmail.com : akothadesk42 :
  2. admin@amaderkatha24.com : kamader42 :
সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:২৯ অপরাহ্ন

”বাইডেন এলেই উগ্রবাদ আসবে”

আমাদের কথা ডেস্ক
  • আপডেট : বুধবার, ২৬ আগস্ট, ২০২০

নিউজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের আগামী নভেম্বরের নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক প্রার্থী জো বাইডেন জয়ী হলে ‘আমেরিকায় ভয়ানক চিত্র’ তৈরি হবে বলে আক্রমণ শানিয়েছেন রিপাবলিকানরা।

সোমবার ক্ষমতাসীন দলটির জাতীয় কনভেনশনে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার সতীর্থরা বলেছেন, বাইডেনের নেতৃত্বে আমেরিকা হবে বিশৃঙ্খলায় পরিপূর্ণ।

নতুন উগ্রবাদী সমাজতান্ত্রিক যুগের সূচনা হবে। এদিন নর্থ ক্যারোলিনার চার্লটে অনুষ্ঠিত সম্মেলনের শুরুতেই দ্বিতীয় মেয়াদে নিজের প্রার্থিতা চূড়ান্ত করেন ট্রাম্প।

এরপর এক ভাষণে কোনো প্রমাণ ছাড়াই বলেন, ডেমোক্র্যাটরা নির্বাচনে ভোট জালিয়াতি করতে পারেন। ডেমোক্র্যাটদের মতো রিপাবলিকানদের সম্মেলন এতটা ভার্চুয়ালি হয়নি। প্রধান প্রধান বক্তা মঞ্চে উপস্থিত হয়েই বক্তব্য দেন।

ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণা উপদেষ্টা কিম্বার্লি গুইলফোইল বলেন, ‘তারা (ডেমোক্র্যাটরা) এই দেশকে ধ্বংস করতে চায়। যেগুলো রক্ষায় লড়াই করছে এবং যেগুলো পরম মমতায় আঁকড়ে ধরেছি সেগুলোও ধ্বংস করতে চায় তারা।’

মার্কিন ভোটারদের উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, ‘তারা আপনার স্বাধীনতাকে চুরি করতে চায়। আপনি যা দেখেন, চিন্তা করেন বা বিশ্বাস করেন- সব কিছুর নিয়ন্ত্রণ নিতে চায়, যাতে আপনি কিভাবে জীবনযাপন করেন তারও নিয়ন্ত্রণ নিতে পারেন।’

সম্মেলনের শুরুর দিনই ডেমোক্র্যাটদের তীব্র বাক্যবাণে বিদ্ধ করেন রিপাকলিকানরা। বিশেষ করে সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও তার রানিংমেট কমলা হ্যারিসকে নিশানা বানান তারা। রিপাবলিকানদের অভিযোগ, ডেমোক্র্যাটরা নির্বাচনে জয়ী হলে বাইডেন ও কমলা উগ্রপন্থী বামঘরানার অক্টিভিস্টদের পুতুলে পরিণত হবেন।

অধিকাংশ বক্তার অভিযোগ, বাইডেন পুলিশের ফান্ড ও তেল-গ্যাস উত্তোলনে ‘ফ্রাকিং’ পদ্ধতি বাতিল করতে চান। সম্মেলনস্থলে উপস্থিত হওয়ার কথা না থাকলে হুট করে সেখানে হাজির হন ট্রাম্প। নিজের ভাষণে তিনি ডেমোক্র্যাটদের ওপর আক্রমণ শুরু করেন।

ট্রাম্প বলেন, ‘নির্বাচনে চুরি করতে ডেমোক্র্যাটরা কোভিডকে ব্যবহার করছেন। মার্কিনিদের ঠকাতে তারা কোভিডকে ব্যবহার করছেন। তাদের জয়ের একমাত্র পথই খোলা রয়েছে- ভোট কারচুপি।’

রিপাবলিকান দলের দুই উঠতি তারকা- সাউথ ক্যারোলিনার সিনেটর টিম স্কট (রিপাবলিকানদের একমাত্র কৃষ্ণাঙ্গ সিনেটর) ও জাতিসংঘে ট্রাম্পের সাবেক রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালিও ডেমোক্র্যাটদের এক হাত নিয়েছেন।

হ্যালি বলেন, ‘আমেরিকা বর্ণবাদী দেশ, এটা বলা ডেমোক্রেটিক দলের কাছে ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যাচার। যুক্তরাষ্ট্র বর্ণবাদী দেশ নয়।’ বাইডেনকে অতি উদারনৈতিক বামঘেঁষা প্রার্থী হিসেবে উল্লেখ করেছেন সিনেটর টিম স্কট। তিনি জনগণকে সতর্ক করে বলেছেন, ‘জো বাইডেন জয়ী হলে যুক্তরাষ্ট্র সমাজতন্ত্রের পথে ধাবিত হবে।’

কোভিড-১৯ মোকাবিলায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চরম ব্যর্থ হয়েছেন- ডেমোক্রেটিক দলের এমন সমালোচনার জবাব দেয়া হয়েছে প্রথম দিনের কনভেনশন থেকে। এ পর্যন্ত এক লাখ ৮০ হাজার মার্কিনির মৃত্যুর জন্য ট্রাম্পকে অনেকাংশে দায়ী করা হয়।

ডেমোক্রেটিক দলের কনভেনশন থেকে বলা হয়েছে, ট্রাম্প সময় মতো উদ্যোগ নিলে এ মৃত্যুর সংখ্যা কমানো যেত। ওয়েস্ট ভার্জিনিয়ার নার্স অ্যামি ফোর্ড বলেছেন, ‘আমি পরিষ্কার করে কথাটি বলতে চাই, যাতে সংবাদমাধ্যম তাদের উপস্থাপনায় ভিন্নতা আনতে না পারে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দ্রুত পদক্ষেপের কারণেই আমেরিকায় আরও হাজারো মৃত্যু ঠেকানো সম্ভব হয়েছে।’

ট্রাম্পের ছেলে ট্রাম্প জুনিয়র বলেছেন, ‘জো বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থরক্ষা করার সব সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয়েছেন। কথা বলার স্বাধীনতা যুক্তরাষ্ট্রের একটি উদারনৈতিক দিক হিসেবে দেখা হতো।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই জাতীয় আরো খবর
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Maintained By Ka Kha IT