মাতৃত্ব নারীর জীবনের পূর্ণতা এনে দেয়। একজন নারীর অনেক স্বপ্ন ও সাধ থাকে এই মাতৃত্বকে ঘিরে। নতুন একটি প্রাণ পৃথিবীতে নিয়ে এসে তাকে আদর-যত্নে বড় করে তুলতে হয়। কিন্তু শুধু নবজাতক নয়, যত্ন নিতে হয় নিজেরও। কারণ প্রায় সময়ই দেখা যায় মা হওয়ার পরে চুল পড়ার পরিমাণ অনেক বেড়ে যায়। তাই এই সময়ে চুলের যত্নেও হতে হয় সচেতন। চলুন জেনে নেয়া যাক মা হওয়ার পরে চুলের যত্নে করণীয়-


ডিমের সাদা অংশ
মা হওয়ার পরে এমনিতেই ব্যস্ততার পরিমাণ বেড়ে যায়। নতুন একজন মানুষের সার্বক্ষণিক পরিচর্যা তো আর চাট্টিখানি কথা নয়! তাই হাতে নিজের জন্য সময়ও থাকে খুব কম। এই কম সময়টুকুই কাজে লাগান। চুল পড়া রোধ করার সবচেয়ে সহজ উপায় হলে ডিমের সাদা অংশের ব্যবহার। একটি ডিমের সাদা অংশ আর তিন টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিন। এবার মাথার তালু ও চুলে ভালো করে মাসাজ করুন। ঘণ্টাখানেক রেখে ধুয়ে ফেলুন। চুলের জন্য এর থেকে ভালো কন্ডিশনিং আর হয় না। অল্প কয়েকদিনেই আপনি চুলে পরিবর্তন দেখতে পাবেন।

মেথি
চুল পড়া সমস্যার আরেকটি সহজ সমাধান হচ্ছে মেথি। মুঠোখানেক মেথি নিয়ে পরিষ্কার পানিতে সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। সকালে সেই পানিটুকু মাথায় এবং চুলে ব্যবহার করুন। দুই ঘণ্টার মতো সময় রেখে দিন। এবার ধুয়ে ফেলুন। এটি আপনার চুলকে স্বাস্থ্যজ্জ্বোল না করলেও খুশকিমুক্ত করবে, চুলের গোড়া শক্ত করবে।

টক দই 
দই শুধু খেতেই ভালো এমন নয়, চুল সুস্থ ও সুন্দর করতেও দই সমান কার্যকরী। একটি বাটিতে পরিমাণমতো দই নিন। এবার ভালোভাবে বিট করুন। বিট করা দই স্ক্যাল্পে ভালো করে ঘষে ঘষে লাগান। দশ মিনিটের মতো সময় রেখে দিন। এবার ধুয়ে ফেলুন। চুলের উজ্জ্বলতা দেখে আপনি নিজেই নিজের চুলের প্রেমে পড়ে যাবেন!

 

নারকেলের দুধ
চুলের যত্নে নারকেলের দুধের ব্যবহারের কথা আমরা অনেকেই জানি। কিন্তু এর উপকারিতা সম্পর্কে হয়তো জানি না। এটি চুল পড়া বন্ধ করার পাশাপাশি চুল লম্বাও করে। নিয়মিত চুলে নারকেলের দুধ ব্যবহার করুন আর দেখুন ম্যাজিক!

You Might Also Like

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email address will not be published. Required fields are marked (*).