বাজারে গিয়ে একবারে বেশি করে নিয়ে এসেছেন পেঁয়াজ ও রসুন। কিন্তু জানেন কি এগুলো সংরক্ষণের সঠিক নিয়ম? সঠিক সংরক্ষণের অভাবে নষ্ট হয়ে যেতে পারে খাবার। পাশাপাশি খাবারের পুষ্টিগুণও কমে যায়। জেনে নিন কোন খাবার কীভাবে সংরক্ষণ করবেন।
 
ময়দা সংরক্ষণ করুন মুখবন্ধ পাত্র। পাত্রটি ক্যাবিনেটে অথবা রুম টেম্পারেচারে রাখুন।
পাউরুটি কখনও ফ্রিজে সংরক্ষণ করবেন না। ফ্রিজে রাখলে পাউরুটি ঝরঝরে হয়ে যায় যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। পাউরুটি স্লাইস করে বক্সে রেখে দিন। সরাসরি সূর্যের আলোতে না রেখে ঘরের ঠাণ্ডা কোনও স্থানে রাখুন পাউরুটির বক্স।
আলু ফ্রিজে রাখবেন না। রোদ পড়ে এমন কোথাও রাখাও অনুচিত। শুষ্ক ও ঠাণ্ডা স্থানে আলু সংরক্ষণ করুন, অনেকদিন ভালো থাকবে। আলু ধুয়ে না রাখাই ভালো। ধুলে ভালো করে মুছে ও শুকিয়ে তারপরই সংরক্ষণ করবেন।
ধনেপাতা কিংবা পুদিনা পাতা ভেজা পেপার টাওয়েলে মুড়ে মুখবন্ধ প্লাস্টিকের ব্যাগে করে ফ্রিজে রাখুন। সবজির জন্য আলাদা করা ড্রয়ারে রাখতে পারেন। চাইলে আগা কেটে জারে পানি দিয়ে ভিজিয়ে রেখেও সংরক্ষণ করা যায় এগুলো।
বাদাম কখনও ফ্রিজের বাইরে সংরক্ষণ করবেন না। সিল করা ব্যাগ অথবা মুখবন্ধ বয়ামে ফ্রিজে রাখুন।
পেঁয়াজ-রসুন ফ্রিজে রাখবেন না। শুকনা ও বাতাস চলাচল করে এমন স্থানে সংরক্ষণ করুন পেঁয়াজ ও রসুন। পাকা ফলের আশেপাশেও এগুলো রাখবেন না।
তথ্য: টপটেন রেমেডিস  

 

You Might Also Like

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email address will not be published. Required fields are marked (*).